মোদী জামানার জঙ্গিবাদ

যদিও জঙ্গীবাদ ৫৬” ইঞ্চি নপুংসকের পাল্লায় ৫৬ গুন বেড়ে গেছে। সবকা সাথ সবকা বিকাশ, তাই বোধহয় উনি বিচ্ছিন্নতাবাদী জঙ্গী সংগঠন গুলোকেও সমান সুযোগ দিচ্ছেন।
কেন এতো হামলা, কেন এতো সেনা শহীদ! কেন সাধারণ মানুষ বুলেটের ডগাতে?
নাহ কোনো উত্তর নেই।

বাছুরগুলো যতই নাঁচাকোঁদা করুক, তাদের বলদ পিতা শপথ গ্রহনে পাকিস্থানী প্রধানমন্ত্রীকেই কুটুম করে এনেছিলেন, এবং এই কুটুম্বিতা আজও জারি।কখনও প্রকাশ্যে আসে বাকিটা গোপন পরকিয়া।
কোথাও হামলা হলে আমাদের নিরীহ সেনাধক্ষ্য বা অবলা গোয়েন্দাদপ্তরের আগে নাগপুর বা দিল্লির অশোক রোডের চিড়িয়াখানা ঘোষনা করে দেয় এটা কোন জঙ্গি দলের কাজ।
এবং আশ্চর্যভাবে সেই দলই দায় স্বিকার করে।
কে জানে জঙ্গিদলের মুখপাত্র গুলো নাগপুরে দূত রেখেছে! না নাগপুরের দূত জঙ্গী ডেরাতে জামাই আদরে রক্তের হোলি উদযাপন করে।
সম্ভবত একই বাপের অবৈধ সন্তান দুটো।

মুসলমান মানেই সন্ত্রাসবাদী, এটা বলে দেশজুড়ে বেশ কিছু সাধারন মুসলমানের গলা কাটা উৎসব বন্ধ করে দিল সেলিম গফুর। কেন যে বাসচালকটা মুসলমান হল!! আরো অনুশীলনের প্রয়োজন আছে। প্রস্তুতিতে এমন ভুল মেনে নেওয়া যায়?? তবে পেটোয়া মিডিয়াগুলো তিনদিনের খাবারের সন্ধানও পেয়ে গেছে। গোয়েন্দাদপ্তরের কর্তারা সম্ভবত গরুর আধার কার্ড বানাচ্ছে। আর টিভি চ্যানেলের বাইট মুখস্ত করছেন আয়নার সামনে বসে।

কিন্তু এতো জঙ্গী জঙ্গী করছে, জঙ্গীরা তো সেই ৮ অক্টোবরের রাতেই সব সঙ্কীর্তনের দল খুলেছে, অন্তত ৫৬ ইঞ্চির বলদের ঘোষণা মত।
১২০ জন মত সেনা শহীদ, অতএব অবশিষ্ট ১২০০ জংগীর মুন্ডু সংসদে সাজানো থাকার কথা।
সার্জিক্যাল স্ট্রাইক প্রচার বাছুগুলো এমন ভাবে করে ছিল যেন বাপের বিয়ে হচ্ছে।
অতএব জঙ্গী কোথায়?
তাহলে জঙ্গীহানাটা গিমিক? না বলদের বানী গুলো.
ভক্তো??
উত্তর পাওয়া যাবে?

ইন্ডিয়া টুডের পেজে এই পোষ্টটা অন্য গল্প শোনাচ্ছে।
অদৌ জঙ্গী হানা?

Leave A Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *