পুনরাবৃত্তি

পাশাপশি বাঁচে দুটো দুটো প্রাণ,

একটি অভিশাপের পুনরাবৃত্তি;

পরিবর্তিত সময়ও বড় বেয়াড়া

চাহিদারাই শুধু সত্যি।

অভ্যাসের দ্বীর্ঘশ্বাস, মগজে শতাব্দীর ঝুল

মহীরুহ প্রাণ পায় পাখির মল বয়ে,

জমাট রক্ত, ধমনীর নীলাভ মিথ্যায় বেঁচেছিল

যারা, প্রাণ পেতেই গেল বিচ্ছিন্ন হয়ে।

একাকীত্বের সবুজ বিষে সর্বাঙ্গে ছত্রাকের দাগ

যাতনারা প্রবল বেগে ধাওয়া করে, আজও

দায়িত্বের শৃঙ্খলায় পিষে যাওয়া অনুভবেরা ক্লান্ত,

অভ্যাসের শীতল নিঃশ্বাস, কলহাস্যে সমাজও।

গীর্জাঘরের মোমের মত গলে যায় আকাঙ্ক্ষারা

সীমাহীন চাহিদার ভারে রুগ্ন মেরুদণ্ড বাঁকা,

নিয়নের আলোর মত আশক্তিরা মৃদুমৃদু চায়

যখন- অনিষিক্ত ইচ্ছেদের মিথ্যা হাঁকা ডাকা।  

বাঁচার শখটাকে লুকিয়ে ফেলতে শেখা,

বুকের অতলে, পাক দিয়ে উঠে নিষ্ফল ক্রোধ,

খেয়ালী মর্মরধ্বনি কানাকানি করে, একাকি;

কামনার তীরে নবজাতকের জন্ম, মঙ্গল বোধ।

চাকা ঘুরে মরে, পরিধির বিন্দু

বেয়ে, সময়েরই জয়গান

অভিশাপ ভুলে, গুমোট অমৃতের-

পুনরাবৃত্তি, প্রলোভিত প্রাণ।

Leave A Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *