অকপটে- ভয় পেয়না

#অকপটইভেন্ট

#ভয়পেয়োনা

#নিয়মাবলী

আমাদের ‘ভয় পেয়োনা’ শীর্ষক অকপট সাহিত্যবাসর তথা ইভেন্টটি শুরু হচ্ছে দীপাবলির পরদিন সোমবার তথা ২৮/১০/২০১৯ তারিখ থেকে, চলবে ৩০/১১/২০১৯ তারিখ পর্যন্ত।

লেখা জমা করার শেষ তারিখ ১৭/১১/২০১৯ তারিখ পর্যন্ত।

লেখা পাঠাবার ঠিকানা-

Email- okopot.event@gmail.com

Whatsapp: 7001718580

এই ইভেন্টের জন্য আমাদের গল্পের ‘খুঁটিনাটি বিশ্লেষণ বিষয়ক’ দল গঠন করা হয়েছে, সেখানে পাঠক তথা অকপটের বিশিষ্ট সদস্যদের মধ্য থেকে ট্যেকনিক্যাল তথা প্রয়োগিক কমিটিতে থাকছেন মালিকা মাফরুদা বানু, বাপ্পাদিত্য মণ্ডল ও সৌরভ নন্দী। বাকিরা সাথে আমাদের পরিচালকমন্ডলী থেকে সুব্রত মণ্ডল, দেবেশ সিংহ ও নয়ন রঞ্জন দাস। শেহনাজ আলম ও এন্টিগ্রাভিটি শ্যাম থাকছে ইভেন্ট পরিচালনা ও খতিয়ান বিষয়ক বিবিধ দায়িত্বে। গ্রুপের পক্ষ থেকে প্রতিদিন গল্প গুলো প্রকাশ করবেন- জয় ব্যানার্জী, প্রীতিকণা জানা, মোমিন মণ্ডল, নয়ন রঞ্জন দাস, শেহনাজ আলম প্রমুখেরা #ভয়_পেয়োনা হ্যাসট্যাগ সহ।

শর্তাবলীঃ লেখকের জন্য

*****************

১. প্রধান ও প্রথম শর্ত – লেখা হতে হবে মৌলিক। যে লেখা ইতিপূর্বে কোথাও প্রকাশিত হয়েছে (কাগজ বা বৈদ্যুতিন মাধ্যমে ,সোশ্যাল মিডিয়ার কোনো গ্রূপ, পেজ বা নিজের টাইমলাইন) তা কোনো পরিস্থিতিতেই গ্রহণযোগ্য নয়। লেখক এমন কোনো লেখা জ্ঞানত বা অজ্ঞানত আমাদের দিলে, এবং পরবর্তীতে তা জানা গেলে সেই মুহূর্তে লেখকের সংশ্লিষ্ট গল্প বাতিল বলে বিবেচিত হবে।

২. “ভয়” সম্বন্ধীয় যেকোনো লেখা গ্রহণযোগ্য, কিন্তু তাতে ভয়ের বিষয়টা থাকতেই হবে নতুবা সেটা এই ইভেন্টের জন্য বিবেচিত হবেনা। গল্প, উপন্যাস, প্রবন্ধ বা নাটক যেকোনো ফরম্যাটে লেখা জমা দেওয়া যাবে। তবে লেখার ভাষা ও শব্দের ব্যবহার কোনো ধর্ম বা রাজনৈতিক ভাবে কোনো সম্প্রদায়ের অনুভূতিতে উদ্দেশ্য প্রণোদিত ভাবে আঘাত করে তা অকপটের দেওয়ালে প্রকাশ পাবেনা। তবে লেখা যদি অতি সংবেদনশীল হয় সেক্ষেত্রে সে সে লেখা প্রকাশ পাবে কিনা তা প্রয়োগিক ও পরিচালকমণ্ডলীর সম্মিলিত সিদ্ধান্তের উপর নির্ভর করবে। তবে সমসাময়িক ঘটনাবলীর উপরে কোনো ভয়ের গল্প, ‘রুপকের’ মোড়কে লিখলে সেটাকে আমরা বিশেষ অগ্রাধিকার দেব।

৩. আপনার লেখাটি আপনি নিজে অকপট গ্রুপের টাইমলাইনে পোষ্ট করবেননা। আপনি আমাদের অকপটের ইমেল আইডি okopot.event@gmail.com তে অথবা অকপটের হোয়াটসএপ নাম্বার -৭০০১৭১৮৫৮০ (7001718580) পাঠিয়ে দিন। হ্যাঁ, ইমেলে বা হোয়াটসএ্যপে পাঠানো লেখাই প্রতিযোগিতার জন্য একমাত্র বিবেচ্য। হোয়াটসএপ নাম্বারটি সেভ করুন ও পাঠিয়ে দিন সেখানে। অবশ্যই লেখকের নাম পরিষ্কার ভাবে উল্লেখ করবেন।

৪. প্রতিদিন দায়িত্বপ্রাপ্ত কোনো পরিচালক বা নির্বাচিত সদস্যদের দ্বারা সন্ধ্যা ৭টা ও রাত্রি ১০ টার সময়ে গল্প গুলি অকপটের দেওয়ালে আসবে। নির্দিষ্ট সময় থেকে ৭২ ঘন্টা পর্যন্ত প্রতিটি গল্পের পোষ্টের কমেন্ট বক্স খোলা থাকবে। এই সময়ের মধ্যে পাঠককে গল্পটি বা ধারাবাহিকটি পড়ে নির্ধারিত নিয়মে নাম্বার প্রদান করতে পারবেন।

৫. প্রতিযোগিতা শেষ হওয়া তথা ফলপ্রকাশ পর্যন্ত প্রতিটি লেখকের পরিচিতি গোপন থাকবে আমাদের পরিচালক ও লেখকের নিজের পক্ষ হতে। কোনো গল্পের লেখক তার নিজের গল্পের ক্ষেত্রে পাঠক হিসাবে কমেন্ট করতে পারেন, কিন্তু তাতে কোনোভাবেই নিজের পরিচয় যাতে প্রকাশ না পায় তার দায়বদ্ধতা সংশ্লিষ্ট লেখকের। এক্ষেত্রে কোনো বেনিয়ম হলে সেটা প্রয়োগিক ও পরিচালক মন্ডলীর সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত বলে বিবেচিত হবে।

৬. গল্পের শব্দসংখ্যা কমপক্ষে ৮০০ হতে হবে, সর্বোচ্চ ১০০০০, এর বাইরে তা ইভেন্টের উপযোগী বলে বিবেচিত হবেনা। শব্দসংখ্যার উচ্চসীমা ভেদে নিম্নলিখিত শ্রেণী থাকবে।

  • “ক” শ্রেণী -২০০০ শব্দ সংখ্যার মধ্যে। এগুলো সন্ধ্যা ৭টার সময় গ্রুপে আসবে।
  • “খ” শ্রেণী – ২০০১ থেকে ১০০০০ শব্দের মধ্যে। রাত ১০ টার সময় ধারাবাহিক ভাবে গ্রুপে আসবে।

৭. এবার ‘অকপট’ লেখক লেখিকাদের জন্য নিয়ে আসছে বোনাস নাম্বার। নতুবা লেখক বড় লেখা কেন লিখবেন?

  • ১০০০ শব্দ পর্যন্ত লিখলে কোনো বোনাস নাম্বার পাওয়া যাবেনা।
  • ১০০১-২৫০০ শব্দের মাঝে হলে অতিরিক্ত ১ নাম্বার পাবে।
  • ২৫০১-৪০০০ শব্দের মাঝে হলে অতিরিক্ত ২ নাম্বার পাবে।
  • ৪০০১-৫৫০০ শব্দের মাঝে হলে অতিরিক্ত ৩ নাম্বার পাবে।
  • ৫৫০১-৭০০০ শব্দের মাঝে হলে অতিরিক্ত ৪ নাম্বার পাবে।
  • ৭০০১-১০০০০ শব্দের মাঝে হলে অতিরিক্ত ৫ নাম্বার পাবে।

৮. যে কোনো প্রকারের Plagiarism কে অকপট সমর্থন করেনা। যদি কেউ এটা করে থাকে, সে দায় একান্তই সেই লেখকের। অকপট গ্রূপ বা সাহিত্য পত্রিকা কোনো দায় গ্রহন করবেনা।

৯. লেখককে লেখার স্বাধীনতা দিচ্ছে অকপট। আপনার সংখ্যা গননা করার প্রয়োজন নেই, সংখ্যা কত হলো এবং কত বাকি আছে আমরা আপনাকে জানিয়ে দেব।

১০. গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্ট – কেবলমাত্র বাংলা ভাষা ও হরফেই লেখা গ্রহণ করা হবে। বিশেষ ক্ষেত্রে টাইপ করতে অসমর্থ কেউ থাকলে তার গল্পটি ঝকঝকে হাতের লেখায় লিখে ছবি তুলে আমাকে কাছে পাঠালে সেটা আমরা টাইপ কর নেব। কোনো অবস্থাতেই ইংরেজি বা হিন্দিতে অথবা অন্য ভাষাতে লেখা দিলে তা গ্রহণ করা হবেনা।

পাঠকদের জন্য শর্তাবলী

****************

১. সাধারণ সদস্য তথা পাঠকদের ক্ষেত্রে, যারা অন্তত ৮০ শতাংশ গল্পে নাম্বার প্রদান করবে, শুধুমাত্র তাদের নাম্বারই অন্তিম হিসাবে গ্রহণ করা হবে। পরবর্তী পরিস্থিতিতে এই মানের হেরফের হতেই পারে।

২. নাম্বার প্রদানের যে নির্দিষ্ট পদ্ধতি রয়েছে, একমাত্র সেইভাবে নাম্বার প্রদান করলে তবেই সে নাম্বার গৃহীত হবে।

৩. নাম্বার প্রদানের নিয়মাবলীঃ

  • অংশগ্রহণ ও নামকরণের জন্যঃ ৩+৩= ৬
  • গল্পের প্লট বা অবকাঠামোঃ ৬
  • গল্পের চরিত্র সৃজনঃ ৫
  • গল্পের ভূমিকা রচনাঃ ৫
  • ক্ল্যাইম্যাক্স তথা পরাকাষ্ঠাঃ ৫
  • গল্পের পরিসমাপ্তিঃ ৬
  • ভাষা ব্যবহার ও বাক্যগঠনঃ ৩+৩= ৬
  • বানান ও ব্যাকরণঃ ৩+৩= ৬
  • সামগ্রিক নান্দনিকতা তথা পাঠ্যসুখঃ ৫
  • মোটঃ ৫০

মানে এই ভাবে দিলেও চলবেঃ ৬+৬+৫+৫+৫+৬+৬+৬+৫=৫০

৫. প্রতিটি ধারাবাহিক পর্বে পাঠকেরা তাদের পছন্দ জ্ঞাপন করে কমেন্ট করতেই পারেন, অন্তিম ধারাবাহিক পর্বে আমাদের কোনো এক পরিচালক সকল পাঠকদের মেনসন করে নাম্বার প্রদানের বিষয়টা স্মরণ করিয়ে দেবে যারা আগের পর্বগুলোতে আগ্রহ প্রকাশ করেছিলেন। এবং সেই অন্তিম পর্বেই সংশ্লিষ্ট গল্পের প্রদেয় নাম্বার প্রদান করবেন পাঠক কুল।

৬. প্রতিটি লেখকই উত্তম পাঠক। লেখকরা শুধুমাত্র লেখা দিয়েই দায়িত্ব সারবেন, এটা অন্যের লেখা পড়ে দেখবেন না, এটা অকপটের পরিপন্থী। আবার লেখক নিজের লেখা প্রকাশ পাওয়া অবধি থাকলেন, তারপর আর অন্য লেখা পড়ে নাম্বার প্রদান করলেন না, সেটাও অকপটুতা নয় বরং অসৌজন্যতা। তাই যেসব লেখক ইভেন্টের অন্তত ৫০ শতাংশ গল্পে নাম্বার সহ উপস্থিত থাকবেন তাদের গল্পই শেষ পর্যন্ত প্রতিযোগীতায় থাকবে। এই ব্যাপারে সকল লেখকের সহযোগিতা একান্তভাবে কাম্য।

৭. অনেকসময় দেখা যায়, ‘আমি প্রতিযোগিতাতে আছি’ এই ধারণার বসবর্তী হয়ে অনেকেই টেনে টেনে নাম্বার দিচ্ছেন যেন কিডিনি চেয়ে নিয়েছে। যোগ্যতার বাইরে গিয়ে অকপট কোনো রচনার মূল্যায়ন করার জন্য উৎসাহ দিচ্ছেনা, কিন্তু ঋণাত্বক ভাবনারও বিরোধী। ধরা যাক ১০ নাম্বারর সর্বোচ্চ, এক্ষেত্রে কোনো লেখক লাগাতার ধারাবাহিক ভাবে অন্য লেখকদের লেখাতে কমিয়ে নাম্বার দিয়ে গেলেন, কিন্তু অন্যান্য পাঠকেরা গড়ে যে নাম্বার দিচ্ছেন তার চেয়েও প্রত্যেক ক্ষেত্রেই কম। সেক্ষেত্রে সংশ্লিষ্ট লেখকের দেওয়া সর্বোচ্চ প্রদেয় নাম্বারকে ধ্রুবক ধরে তার গল্পে অন্য পাঠকদের নাম্বরকেও আনুপাতিক হারে কমিয়ে দেওয়া হবে। উদাঃ তন্ময় হক নামের কোনো ‘লেখক ও পাঠক’, তিনি প্রতি গল্পে ১০ এর মধ্যে গড়ে ৪ করে নাম্বার দিয়েছেন, অতি ভাল গল্পেও ৬ এর বেশি দেননি যেখানে অন্তত ৫০ শতাংশ পাঠক নাম্বারের বর্ষন করেছেন। সেক্ষেত্রে ওনার নিজের গল্পে কেউ ১০ এ ১০ দিলে সেটাকে ৬ হিসাবে গন্য করা হবে, ও বাকি পাঠকদের নাম্বার গুলোও এই আনুপাতিক নিয়মে হ্রাস পাবে তন্ময় বাবুর লেখা গল্পে। 

৮. কোনো সদস্য বা অকপট পরিচালক, মন্তব্যে অন্যায় সুযোগ সুবিধা দেবার বা নেবার চেষ্টা করার দরুন ধরা পড়লে , তাকে আমরা সসম্মানে গ্রুপ থেকে মুক্ত করে দেওয়া হবে।

লেখক, পাঠক ও ইভেন্টের বাইরে যারা থাকবেন সকলের জন্য নিয়মাবলী

—————

১. প্রতিদিন সন্ধ্যা সাতটার সময় ‘ক’ শ্রেনীর তথা ২০০০ শব্দের মধ্যে থাকা গল্প গুলো প্রকাশ পাবে। ২০০০ শব্দের উপরের গল্প গুলো ধারাবাহিক রূপে প্রতিদিন রাত্রি দশটার সময় গ্রুপে প্রকাশিত হবে। একটি গল্পের জন্য সর্বোচ্চ, ৬ টি ধারাবাহিকের সারিবান্ধা পেতে পারে। একটি গল্পের ধারাবাহিক শেষ হলে তবেই পরবর্তী ধারাবাহিক আসবে।

২. লেখা প্রকাশিত হওয়ার আধাঘন্টা আগে ও একঘন্টা পরে পর্যন্ত অত্যন্ত জরুরী কোনো পোষ্ট ছাড়া সকল ধরনের পোষ্ট ট্রাফিকিং করা থাকবে। এই দেড় ঘন্টা আমাদের ইভেন্টের জন্য বরাদ্দ। তবে পূর্বে প্রকাশিত কোনো পোষ্টের কমেন্টিং বন্ধ হবেনা।

৩. যেকোনো প্রকার বিবাদে নিরপেক্ষ সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। কোনো রকমের পক্ষপাতমূলক ব্যাবহার করা যাবেনা, পাঠক লেখক নির্বিশেষে।

৪. আবারও একবার অনুরোধ করছি, লেখকেরা অকপটের নির্দিষ্ট মেল আইডি- okopot.event@gmail.com এই ঠিকানাতে লেখা পাঠাবেন। লেখা পাঠাতে পারেন এই ৭০০১৭১৮৫৮০ (7001718580) হোয়াটসএ্যাপ নাম্বারেও।

৫. সকল সদস্যকে ইভেন্ট চলাকালীন এই নিয়মের মধ্যে থেকে পোস্ট করার অনুরোধ করছে টিম অকপট।

৬. ইভেন্টের প্রথম তিন স্থানাধিকারীকে পুস্তক দ্বারা সম্মাননা প্রদান করবে অকপট। এছাড়া প্রথম স্থানাধিকারীকে আগামী ১৩ই ডিসেম্বর ২০১৯ তারিখে অকপটের ডুয়ার্স ভ্রমণে বিনামূল্যে ভ্রমণের উপহার দেওয়া হবে টিম অকপটের তরফ থেকে যদি তিনি নিজে ইচ্ছুক থাকেন।

-ধন্যবাদান্তে।

Leave A Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *