ভোটের ডিউটিতে যাবার আগে এটা করে যান, নতুবা হারিয়ে গেলে তার জন্য আপনিই দায়ী থাকবেন।


To whom it may concern


বিধিঃ পচাশৎ অর্থমূল্যমানের একটি রাষ্ট্রীয় মোহর মুদ্রাক্ষিত বিশিষ্ট পত্রে লিপিবদ্ধ করিতে হইবে, অতঃপর দলিলপত্র হিসাবে সম্পাদনের কল্পে কারণিক হাকিমের দস্তখৎ আবশ্যক।   
উপক্রমণিকাঃকস্য সাধারণ আম-হলফনামা মিদং কার্যাঞ্জে, পরম করুণাময় (নিজ নিজ ঈশ্বরের নাম লিখিবেন, নাস্তিকেরা এড়াইয়া যান, শষ্প বংশীয়েরা লিখিবেন ‘তাঁহার অনুপ্রেরণায়’) নামে শপথ করিয়া ঘোষণা করিতেছি যে-


রাষ্ট্রীয় পরোয়ানা হেতু, রাষ্ট্রীয় অভিভাবক নির্বাচনের নিমিত্ত, আমি রাষ্ট্রীয় অঙ্গরাজ্যের সোপর্দ কতৃক কর্মবিশেষ দায়িত্ব সনদপত্র প্রাপ্ত করিয়াছি। তৎসুত্রীয় এই নিষ্কণ্টক কার্মিকেয়র অবতারণা।


অঙ্গীকারনামাঃ

১) আমি শ্রীযুক্ত ‘অমুক’, শ্রীযুক্ত ‘অমুকের’ ঔরসজাত সন্তান, সাকিন ‘তমুক’। চুরান্ত অনিহা স্বত্বেও, রাষ্ট্রীয় বলপূর্বক স্নায়ুচাপজনিত নানাবিধ আতঙ্ক, ত্রাস, ভীতি, আশঙ্কার অভ্যন্তরে, সর্বপরি সরকারী চাকুরীটি বাঁচাইবার লক্ষ্যে, আমি এই কার্যে আসিবার জন্য সম্মত হইয়াছি। অন্যথায় রাষ্ট্ররোষে কুপিত হইতে পারি।


২) আমার কোনো প্রকারের মানসিক দুর্বলতা ও অবসাদ নাই।


৩) আমার পারিবারিক অশান্তি নাই, থাকিলেও উহাকে প্রলম্বিত রাখিবার দায়ে আমার গৃহে প্রত্যাবর্তন জরুরী।


৪) আমার উত্তমর্ণ দ্বারা বিপদগ্রস্থ নই, ভ্রান্তিবসত থাকিলেও উত্তমর্ণগণ আমার অবর্তমানে আমার অপত্য ও আস্থাস্থাপকের উপরে অধমর্ণহেতু গঞ্জনা বর্ষন করিলে উহা আমার নিকট মোটেই সুখকর বিষয় হইবেনা, সেইহেতু রাষ্ট্রীয় কর্ম সমাপ্তিতে আমার গৃহে প্রত্যাবর্তন অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।


৫) বিশ্বসমাজের সৃষ্টিকর্তা, পুরুষ জাতিকে সৃষ্টিই করিয়াছেন বহুগামিতার সর্বপ্রকারের গুণ দিয়া। ইহার পরেও আমার, কহিবার মত সুস্পষ্ট ও তীক্ষ্ণ অন্তরটান বিশিষ্ট পরকিয়া নাই, অতএব গৃহত্যাগী হইতে আমি অক্ষম। পড়শিতুতো সম্পর্কজালের দ্বারা সৃষ্ট অগ্রজজায়ার প্রতি কিঞ্চিৎ আকর্ষণ থাকিলেও সেক্ষেত্রে গৃহে পুনরাগমন আবশ্যিক।


৬) এই মধ্যবয়সে আসিয়া, দুর্মূল্যের দুর্বিপাকে “কোথাও আমার হারিয়ে যাওয়ার নেই মানা” তত্ত্বে বিশ্বাসী নই, উহা “মনে মনে”ই আমার জন্য সঠিক, গুরুদেবের লেখনি সার্থকতাতে আমরা দায়বদ্ধ। নিরুদ্দেশ যাত্রা এমনিতেই জাতি বাঙালির গঠনতন্ত্রে অনুপস্থিত।


৭)  “কর্ণকুহরে সঞ্চালিত একাকী সঙ্গীত বাসর যন্ত্রে” উন্মত্তের মত গীতসুধা শুনিতে শুনিতে রেলপথ বা সড়কে পারাপার করিতে কোনোকালেই স্বচ্ছন্দ্য ছিলামনা বর্তমানেও নেই।


৮) আমি কোনো প্রকারের গুপ্ত ব্যাধি দ্বারা আক্রান্ত নই যে সামান্য পলায়নের সুযোগ আসিবা মাত্রই আমি উন্মত্তের মত সেই পথে ধাবিত হইব, সভ্য সমাজ ত্যাজিয়া।


৯) হিন্দিভাষ্যে নির্মিত চলচ্চিত্র ‘মিস্টার ইন্ডিয়া’র মত নীলিন হইবার মত ক্ষমতা করায়ত্ত করিতে পারিনাই।


১০) স্বল্পাহারী আমার এমন কোনো প্রকারের ক্ষুধা ব্যারাম নাই, যেখানে গোটা ‘আমি’ টাকেই উদরস্থ করিয়া সম্পূর্ণ পরিপাক করিয়া ফেলিব, সামান্যতম উচ্ছিট্ট ব্যাতিরেকে।


১১) এই সরকারী চাকুরিটির হেতু বড় কায়ক্লেশে করিয়া অমন একপিস নধর, তত্বাবধায়ক, নীতিশিক্ষক, বাক্যবাগীশ জীবনসঙ্গিনী, বিশ্বনিষ্কাষণ করিয়া অর্জন করিয়াছি। সেইহেতু, দ্বিতীয় কোনো প্রকারের  প্রেমজনিত কার্যকলাপের প্রতিশ্রুতি দিতে অক্ষম, যাহাতে ‘চাঁদে চলিয়া যাইব’ বা কোনো নির্জন দ্বীপে যাইবার বাসনা জাগ্রত হইবে।

১২) ইন্ট্রিগেশন ক্যালুলাস অনুশীলনের অভ্যাস নাই, কিন্ত ১৭ ঘরের নামতা যোগ করিয়া করিয়া মুখস্ত বলিতে পারি। আমি সুস্থ ও স্বাভাবিক তাহার একটি নমুনা ইহা।


১৩) সনাতন ধর্মের পূর্নজন্মের লোভ বা ইসলামে উল্লেখিত মৃত্যুর পর প্রাপ্ত ৭২ হুরের লোভে আমি লোভাতুর মোটেই নই, শাস্ত্রে আছে তাই পাঠ করি মাত্র। আমি বাঙালী পুরুষ, ঘরের দেবী ছিন্নমস্তা/রণচন্ডী স্ত্রীরূপী অভিভাবকই আমার উপরে সৌন্দর্য আরোপিত করিয়া থাকেন। তাঁহার সুমিষ্ট আঁচলের তলেই আমার যাবতীয় সুখানুভূতি ও বিশ্ব ক্রীড়াক্ষেত্র।


১৪) মহার্ঘভাতার বৃদ্ধি সেই তিমিরে, পরিভৃতি অন্যন্য অঙ্গরাজ্য কিম্বা কেন্দ্রের তুলনাতে বিপুল বৈষম্যান্বিত। তাই ইলিশ মৎস, নপুংসক পুরুষ ছাগ মাংস, বিরিয়ানি, অসময়ে পক্ক অমৃতফল, সরভাজা, গলদা চিঙিড়ি খাইবার মত সামর্থ্য নেই- যাহার দরুন অম্লশূল, ভেদবমি, শিথিলান্ত্র, আন্ত্রিক ইত্যাদির মত বিত্তশালী পীড়াহত হইয়া বনেবাদারে মরিবার মত সঙ্কুলান নাই, তথাপি আমি আমৃত্যু পরিবারের সহচর্যেই থাকিতে চাই।


১৫) জঙ্গি নাম শুনিবামাত্রই আমার পক্ষি সদৃশ্য স্বেতবর্ণের মলত্যাগ করি, অতএব জঙ্গিদলে নাম লেখাইবা হেতু আমি গৃহত্যাগে অক্ষম।

১৬) শত্রু প্রতিপালনের মত পরাক্রমতা আমার রক্তে কোনো কালেই ছিলনা। অবশিষ্ট যাহা কিছু তাহার নির্বীজকরন করিয়াই আমি আজ এই স্থানে পৌছাইয়াছি। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রদর্শিত বীরত্ব অনুসারে আমাকে বিবেচনা করা অহেতুক, ওই পরিসরের শত্রুরাও বাগ্মী জগন্নাথ। বাস্তবে ওই পরিমন্ডলের আমরা নিতান্তই ছাপোষা। অতএব আমি অজাতশত্রু।


এদত মর্মে পুনরায় অঙ্গীকার পূর্বক স্বজ্ঞানে, সুস্থ মস্তিষ্কে, পত্নী ও শ্বশ্রূমাতা প্ররোচনা ব্যাতিতই ঘোষণা করিতেছি; আমি একজন ভারত রাষ্ট্রের বিশ্ববাংলা অঙ্গরাজ্যে তাঁহার অনুপ্রেরণায় একজন আম নাগরিক।

ঘোষণাকারীর সাক্ষরঃতারিখঃ
মুসাবিদা কারকের নামঃসাক্ষরঃ
সনাক্ত কারকের নামঃসাক্ষরঃ

প্রামাণিক ইশাদীর নামঃসাক্ষরঃ_______________________রাষ্ট্রীয় আইনব্যবস্থায় স্বীকৃত হাকিম কতৃক নিশ্চয় রূপে জ্ঞাত করণের উদ্দেশ্যে প্রত্যায়িত করা হইল।


@উন্মাদ হার্মাদ

স্বজাতীয় রচনা

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *